প্রচণ্ড শীতে থর থর করে কাঁপছি ৷ এখন গ্রীষ্ম কাল, অন্তত পক্ষে ঘুমাতে যাওয়ার আগে তাই ছিল ৷ ঘুম ভাঙ্গার পর প্রচণ্ড শীত অনুভব করছি ৷ ঘুম ভাঙ্গার পর বললে হয়তো ভুল হবে ৷ প্রচণ্ড শীত লাগার কারণে আসলে ঘুম ভেঙ্গে গেছে ৷

 

হাত পা নারাতে পারছি না ৷ আমার হাত পা বাঁধা ? বেশ কিছুক্ষণ চেষ্টা চালালাম ৷ নাহ হাত পা নির্ঘাত বাঁধা ৷ একটা যান্ত্রিক গুঞ্জন শুনতে পারছি ৷ কিছুক্ষণ পর দুলুনি অনুভব করলাম ৷ আরও কিছুক্ষণ পর যান বাহনের শব্দ ৷ যেহেতু আমি কিছু দেখতে পাচ্ছি না তাই সব কিছু অনুমান করতে হচ্ছে ৷ আমার চোখ বাঁধা ৷

 

হাত পা বেঁধে রেখেছে সমস্যা নাই ৷ কিডন্যাপ করছে তাতে ও সমস্যা নাই ৷ কিন্তু গরম কাল বলে এমন হিম শীতল ঘরে রেখে খাতির যত্ন না করলে ও হত ৷

ঘণ্টা খানেক খুব কষ্টে এভাবেই পার করলাম ৷ জানি চিৎকার চেঁচামেচি করে লাভ নেই ৷ তাই করছি না ৷ চাইলে ও পারব কিনা বুঝতে পারছি না ৷ গলা দিয়ে শব্দ বের হওয়ার কথা না ৷ শরীরের সব অঙ্গ প্রত্যঙ্গ জমে গেছে ৷ শ্বাস নিতে খুব কষ্ট হচ্ছে ৷ এক এক বার শ্বাস নিলে মনে হচ্ছে মাথায়, বুকে কাটা ধুকছে ৷

 

এভাবে আর বেশিক্ষণ থাকলে নিশ্চয়ই মারা যাব ৷ এমন হিম শীতল পরিবেশে এক কাপ কফি হলে বেশ হত ৷ সাথে একটু গান, ঠাণ্ডা টাইপ কোনও গান ৷

 

সম্ভবত জ্ঞান হারিয়েছিলাম , যখন জ্ঞান ফিরল তখন আমি চোখ দুটো বাদে আর কিছু নাড়াতে পারছি না কোথায় যেন হারিয়ে যাচ্ছি , চোখে কিছু দেখতে না পারলেও চাঁদ তারা গ্রহ নক্ষত্র দেখছি বলে মনে হচ্ছে ৷ আস্তে আস্তে সেগুলো দুলতে শুরু করল ৷ তার পর যেভাবে মঞ্চের পর্দা নামে সেভাবে সব অন্ধকার ৷

আলোকহীনতা থেকে আরেক রকম অন্ধকার আছে ৷ সেই অন্ধকারে ভয়ঙ্কর রকম শূন্যতা আছে ৷ আমি কখনো ভাবতে পারিনি সেই ভয়ঙ্কর শূন্যতার অন্ধকার কেমন হতে পারে ৷ এখন আমি জানি ৷