Bangladeshi

শেষ কবে ভাত খেয়ে ছিলাম মনে নেই ৷ আজ খুব ভাত খেতে ইচ্ছে হচ্ছে ৷ যেহেতু আজকে শনিবার সুতরাং আজকে কাজে যেতে হবে না ৷ এখানে শনি আর রবিবার ছুটি থাকে ৷ আমি মাঝে মধ্যে শনিবারে ও কাজ করি ৷ তবে এই সপ্তাহে নাই ৷ গত ২ সপ্তাহ প্রচন্ড খাটা খাটুনি গিয়েছে ৷ এই পরদেশে এসে ২ বছর অক্লান্ত পরিশ্রম এর পর গত বুধবার মাস্টার্স এর শেষ পরীক্ষা টা দিয়েই দিলাম ৷ ভালয় ভালয় পাশ করে গেলে বেচে গেলাম ৷

শরীর হাত পা প্রচন্ড ব্যথা করছে ৷ বিছানা থেকে উঠতে ইচ্ছে হচ্ছে না ৷ কয়টা বাজে তা  দেখার মত ইচ্ছে হচ্ছে না ৷ ইচ্ছে হচ্ছে শুধু এক প্লেট ভাত খেতে ৷ গরম গরম ভাত, আলু ভর্তা, ডিম ভাজি সাথে একটু সরিষার তেল বা ঘি ৷ বাবা অত কিছু না হলেও হবে এক প্লেট ভাত হলেও হবে ৷ মনটা ভীষণ খারাপ হলে গেল ৷

মনে হচ্ছে চিৎকার করি ৷ এই দেশে সব আছে ৷ আপনি বাসায় বসে ফোন দিলে যা চাবেন খাবার দিয়ে যাবে ৷ পিটজা, ফাস্ট ফুড ইস যদি এক প্লেট ভাত দিয়ে যেত কেউ ?

ঘরে চাল নাই ৷ চাল কেনা হয় না ৷ রান্না করবে কে ৷ সকাল ৬ টায় বের হই , ৮ টা নাগাদ ক্লাস ধরি ১১ টায় শেষ হয় ৷ সেন্ট্রাল থেকে দৌরে মেট্রো তে উঠে প্রায় ২৫ মিনিট এর ট্রেস জার্নি করে একটা Job ধরি ৷ job টা মাত্র ২ ঘণ্টার ৷ একটা রেস্টুরেন্ট এ ৷ এই জবটা করার এক মাত্র কাড়ন খেতে দেয় ৷

কোনো মতে ২ ঘণ্টা কাজ করে কিছু খেয়ে ২.২০ এ ক্লাস ঘড়ি ৷ ক্লাস আসলে ২ টা থেকে ৷ ২০ মিনিট সব সময় ই যায় ৷ ক্লাস শেষ হয় ৫ টায় আবার সেই মেট্রো দিয়ে টাউন হল এ যাই ৷ ওখানে ৫.৩০ নাগাদ আরেকটা জব শুরু হয় ৷ ১১.৩০ এ শেষ করে বাসায় যেতে যেতে ১২.৪০ বাজে ৷ কিছু একটা খেয়ে ৷ এই হচ্ছে আমার জীবন ৷

আলসেমি কাটিয়ে বের হলাম ৷ আমার বাসা থেকে ট্রেন ষ্টেশন প্রায় ১৮ মিনিট এর হাটা ৷ আমি যে এলাকাটায় থাকি এটা একদম আমাদের গ্রাম গঞ্জ এর মত ৷ বড় বড় গাছ রাস্তার দু পাশে ৷ কত বিচিত্র পাখি ডাকে ৷  বাংলাদেশে আমি ছোট থাকতে এরকম কত পাখির শব্দ শুনতাম ৷ বড় যত হলাম দেখা গেল সব উধাও পাখির কিচির মিচির কা কা তে পরিনত হল ৷

আজকে ছুটির দিন তাই ট্রেনে অনেক ভীর ৷ এখানে ছুটির দিনে ট্রেনে চড়তে পয়সা লাগে না ৷ মানুষ দূর দূরান্তে ঘুরতে যায় ৷ মজার বিষয় এই দেশে আশার পর এখন পর্যন্ত কোথাও ঘুরতে যাই নাই ৷ আমি কিন্তু ঘর কুনো না ৷ আমি বাংলাদেশের সব জেলায় গিয়েছি ৷ আমি ঘুরে বেড়াতে পছন্দ করি ৷

আমার সামনে এক চাইনিজ কাপল বসেছে ৷ চাইনিজ কিনা তা ও বোঝা মুশকিল ৷ মজার ঘটনা আছে একটা ৷ এই দেশে আশার পর পর প্রথম সপ্তাহে অনেক কিছু বুঝতাম না ৷ এক ছেলে বেশ সাহায্য করেছিল ৷ কথায় কথায় একদিন জিজ্ঞেস করলাম তুমি কি চাইনিজ ? আমার কথা শুনে ছেলেটা বেশ আহত হয়েছিল ৷ তার কথা সে এই দেশে জন্মেছে ৷ বাবা মা চাইনিজ ৷ আমি ব্যাপার টা বুঝতে পারি নাই ৷ আমরা বাঙ্গালিরা অন্য দেশে জন্মালেও বাঙ্গালী বলতে গর্ব বোধ করি ৷ ছেলে টি এতই রেগেছে আমাকে এড়িয়ে গেছে এর পর থেকে ৷

প্রায় ২ ঘণ্টা জার্নির এর ট্রেন থেকে নামলাম ৷ Kogarah  তে বাঙ্গালী থাকে ৷ যেদিকে তাকাবেন বাঙ্গালী পাবেন ৷  স্টেশন থেকে  নেমে বনফুল রেস্টুরেন্ট এর দিকে হাটা শুরু করলাম ৷ আজ অনেক দিন পর ভাত খাব ৷ যাওয়ার সময়  ইন্ডিয়ান দোকান থেকে ৫ কেজি চাল আর মশলাপাতি  নিয়ে যাব ৷ মনটা খুশিতে ভরে গেল ৷ এখনও মনে আছে এই দেশে আসার আগের দিন পুরাণ ঢাকায় গিয়েছিলাম ৷ বেচারাম দেউরির পথ ধরে হাটছিলাম আর ভাবছিলাম বাদায় কাচ্চি বিরিয়ানি ৷ তখন বুঝতে পারি নাই এটা বিদায় ভাত ও হয়ে যাবে ৷